Category Archives: Desserts

বিয়ে বাড়ির জর্দা/ Bangladeshi biye bari (wedding style) style zarda/ jorda/jarda

037

For the English recipe plz click the link below
https://khadizaskitchen.com/2013/01/29/shahi-jordazarda/

এক সময় জর্দা বানানো টা খুবই যন্ত্রনা মনে হতো.আম্মু কে দেখতাম আর ভাবতাম এত যন্ত্রনা করে আমি জর্দা খেতে পারবো না. তাও চির ফাকিবাজ এই আমি বৈদেশে এসে অত্যাধিক কলিজা পোড়ার কারনে কোন একদিন, কোন ঝামেলা ছাড়াই বানিয়ে ফেল্লাম জর্দা.রেসিপি টা প্রথমে কয়েকটা গ্রুপে দিয়েছিলাম.পরে আমার ওয়েব সাইটে. ওরে বাবা, কিছু দিনের মধ্যে দেখি আমার রেসিপির ক্লোন হয়ে গেছে অনেকের নামে !! 😜
কারন আমার এই রেসিপিটা ঝামেলামুক্ত হলেও স্বাদে একেবারে আলহামদুলিল্লাহ বিয়ে বাড়ির সেই স্বাদ. অনেকে বানিয়ে অনেক দোয়া দিয়েছেন.

আমি কখনই আলাদা করে ভাত রান্না করে জর্দা বানাই না,তাতে আমার মনে হয় ফ্লেভার অনেকখানি ওই মাড়ের সাথে চলে যায়.
এখন অনেকেই প্রশ্ন করতে পারেন যে মাড় না ফেলে দিলে ঝরঝরে হবে কিভাবে?
জি না ,মাড় না ফেলেও ঝরঝরে হয়. পোলাউ কি আমরা মাড় ফেলে করি? পোলাউ কি ঝরঝরে হয় না?

অনেকে বলতে পারেন,বিয়ে বাড়ির বাবুর্চিরা তো মাড় ফেলেই করে! চুপি চুপি বলি ,তবে শুনেছি অনেক বাবুর্চিরা মাড় ফেলেন ঠিকই,কিন্তু সিক্রেট ইনগ্রিডিয়েন্ট হিসেবে আলাদা করে কিছু পাতলা মাড় (পানি বেশি দিয়ে ভাত করা হয় ঝরঝরা করার জন্য) তারা সেইভ করে রেখে দেন ,জর্দার পরের ধাপে ব্যাবহারের জন্য.

মাড় ফেলার পরও আমাদের বেশিরভাগেরি বানানো জর্দা নিয়ে যে কম্পলেইন,সেটা হলো জর্দা ঝরঝরে না আর কিছুক্ষন পরেই জর্দা শক্ত হয়ে যায়.
এর কারন হলো অতিরিক্ত চিনির ব্যাবহার. বিয়ে বাড়ির জর্দা তে কিন্তু চিনি বেশ কম ব্যাবহার করা হয় .খেয়াল করে দেখেছেন কি বিয়ে বাড়ির জর্দা কিন্তু হাল্কা মিষ্টি. খুব বেশি চিনি হলে সেটা জর্দার চাল কে শক্ত করে দেয়. তাই চিনি কম ব্যাবহার করুন.আর জর্দা তে একটু বেশি পানি ব্যাবহার হয় ,কারন চিনির কারনে চাল কিছুক্ষন পরেই শক্ত হয়ে যায়.

জর্দা তে আনারস বা কমলার রস ব্যাবহার কেন করা হয়? এই প্রশ্ন টা অনেকেই করেন. এর কারন শুধু ফ্লেভরের জন্য নয় ; আনারস , কমলার রস বা যে কোন সিট্রাস ভাত জাতীয় রান্নায় ভাত বা জর্দা ঝরঝরে করতে সাহায্য করে. প্রতিটি দানা আলাদা রাখতে সিট্রাস সাহায্য করে.

ভাত রান্নায় একটু লেবুর রস ভাত কে ধবধবে সাদা করতেও সাহায্য করে.

আমার রেসিপি তে আমি চাল,ফুড কালার আর গরম মশলা দিয়ে ,পরিমান মতো পানি দিয়ে বসিয়ে দিতাম .চাল সুসিদ্ধ হলে,অল্প পানি থাকা অবস্থায় চিনি,ঘি আর আনারস বা কমলার রস দিয়ে ঢেকে রান্না করতাম. শেষে আরেক্তু ঘি দিয়ে ছড়িয়ে নামিয়ে নিতাম. ছড়ানো পাত্রে রাখলে ১ -২ ঘন্টা পরেই একদম ঝরঝরা হয়ে যায়. কিন্তু কিছুদিন একটু রেসিপি টা চেইঞ্জ করেছি. এখন অর্ধেক ঘি আগেই চাল ফুটানোর সময় দেই,বাকি টা শেষে.

035

যাই হোক, এখন রেসিপি তে আসা যাক কি বলেন?

উপকরণ :

১ কাপ কালোজিরা বা চিনিগুড়া চাল
১ কাপ চিনি বা এর একটু বেশি (মোটা দানার চিনি,একদম ফাইন,মিহি দানার চিনির থেকে বেশি মিষ্টি, তাই স্বাদ অনুযায়ি এডজাস্ট করে নিতে হবে)
২ ১/৪ কাপ পানি
১/৪ কাপ কমলা বা আনারস এর রস
কয়েকটা এলাচ,এক টুকরো দারচিনি,তেজপাতা আর কয়েকটা লং
৩-৪ টেবিল চামচ ঘি
ফুড কালার
সামান্য এক চিমটি লবন (না দিলেও চলে)
মোরব্বা কুচি,বাদাম কুচি,মালাই,সাজানোর জন্য.

প্রনালী :

১. চাল ১ ঘন্টা ভিজিয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন.

২.একটা চওড়া হাড়িতে চাল,পানি ,ফুড কালার,আস্ত গরম মশলা,সামান্য এক চিমটি লবন আর দেড় থেকে ২ টেবিল চামচ ঘি দিয়ে মাঝারি আচে ঢেকে রান্না করুন. বাকি ঘি পরে ব্যাবহার করা হবে.

৩. ১০ মিনিটের মধ্যে পানি প্রায় শুকিয়ে আসবে. এর মধ্যে আর চামচ দিয়ে নাড়ানাড়ি করবেন না,তাতে জরদা আঠালো হয়ে যাবে.এখন চিনি আর আনারস বা কমলার রস দিয়ে ,বাকি ঘি দিয়ে হালকা হাতে একবার নেড়ে দিন.বেশি নাড়বেন না বা জোরে জোরে নাড়বেন না,তাতে চাল ভেংে আঠালো হয়ে আসবে.জ্বাল কমিয়ে রান্না করুন. কিছুক্ষন পর পর খেয়াল করুন,নিচে যেন পোড়া লাগে না. পানি শুকিয়ে গেলে এখন আধাঘন্টার মতো দমে রাখুন. অনেক ঝরঝরে হয়ে যাবে এই দমে রাখার ফলে.
আমি কখনো তাওয়ার উপরে দমে দেই না. আমি যেটা করি,একি মাপের আরেকটা হাড়িতে পানি দেই, ওই হাড়ির উপরে জরদার হাড়ি বসিয়ে ঢেকে দিয়ে চুলা জালিয়ে দেই. জর্দার হাড়ির মুখ বন্ধ থাকবে. পানির ভাপে সমান ভাবে সব জায়গায় তাপ লাগবে আর সুন্দর ভাবে দম হবে.

৪.একটা পাত্রে ছড়িয়ে পরিবেশন করুন. চেপে চেপে জরদা ডিস আউট করলে ওই চাপে জর্দা ভরতা ভরতা হয়ে যাবে. ঝরঝরে হবে না. ২-৩ ঘন্টা ঘন্টা পরে আরো ঝরঝরে হয়ে যাবে.
মোরব্বা,মালাই ,কাটা বাদাম ,ছোট ছোট লালমোহন দিয়ে পরিবেশন করতে পারেন.

*চিনি দেয়ার আগে চাল যদি বেশি সিদ্ধ মনে হয় ঘাবড়াবেন না. চিনি চাল শক্ত করে দেয়,এই জন্য পোলাউয়ে থেকে কিছু বেশি পানি নেয়া হয়.034

Advertisements

13912822_670051879812462_4835616415123959441_n

Bangladeshi authentic style Chomchom ( English recipe is on the bottom)

চমচম:

চমচমের নেশা ধরে গেছে! বিশেষ করে লাল চমচমের. আমার জামাইও বলে, লাল রং দেখেই নাকি বেশি ভাল লাগে. যাই হোক , চমচম সাদা হতে পারলে লাল নয় কেন? 😛 চমচমের যে প্রসেস তাতে আসলে সাদা হওয়ার কথাই না. কারন মূল রেসিপিতে কমপক্ষে ৪ ঘন্টার উপরে জ্বাল দেয়া হয়. আমি ৩ ঘন্টাতেই ক্ষান্ত দিয়েছি. মূল রেসিপির চমচমের রং হাল্কা ঘিয়ে থেকে বাদামি বা গাঢ় বাদামি হতে পারে . জ্বাল দিতে দিতে এরকম রং হতে পারে. তারাহুড়োতে অনেক ময়রারাই কিছু ক্যারামেল ব্যাবহার করলেও আসলে ক্যারামেলের তেমন দরকার পরে না.
পুরোন সিরা তে চমচম বানালেও সুন্দর বাদামি রং হয়. তবে একটা কথা বলি চমচম কখনো আধা ঘন্টা, এক ঘন্টায় হবে না. আধাঘন্টা, এক ঘন্টায় চমচমের টেক্সচার একদমই আসবে না.
সিরা শুকিয়ে আসতে থাকলে বারবার গরম পানি দিতে হবে. যেটার কারনে চমচমের শেইপ আর টেক্সচার ঠিক থাকে. শেষের বার,মানে ২ ,আড়াই ঘন্টা পরে আর পানি যোগ করতে হবে না. সিরা টা কমে ঘন আঠালো হয়ে আসতে থাকলেই চুলা বন্ধ করে দিতে হবে.সিরা ঘন,আঠাল কিন্তু থকথকে হবে না.
পরে আরও কিছু মিষ্টির টিপ্স বলব, ইন শা আল্লাহ, যেমন নরম রসগোল্লা আর স্পঞ্জ রসগোল্লার পার্থক্য .সবার রেসিপি দেখলাম,স্পঞ্জ রসগোল্লারও যে রেসিপি, নরম রসগোল্লারও সেই রেসিপি!!
একি রেসিপিতে দুই রকম টেক্সচারের মিষ্টি কেমনে হয়,আল্লাহ মালুম
ওহ আরেকটা ব্যাপার.চমচম বা যে কোন মিষ্টি বানাতে গেলে কোন হাড়িতে বানাচ্ছেন,সেটাও কিন্তু জরুরি.
ধরুন আপনি এমন ছড়ানো হাড়ি নিলেই, রেসিপিতে যে পরিমান সিরার কথা বলা আপ্নার অই হাড়িতে তা তলানির মতো লাগছে.শুধু শুধু এত গুলা চিনি নষ্ট করবেন পি হাড়ি অনুযায়ি সিরা বানাতে গিয়ে.আবার এমন ছোট হাড়ি নিলেন যে মিষ্টি ফুলে গায়ে গায়ে লেগে একদম চুপসে গেল.এই জন্য সঠিক মাপের হাড়ি নিবেন.

014
যাই হোক চমচমের রেসিপি দেই.

উপকরণ :
১/২ কাপ ছানা ( আমার এখানে ১ লিটার দুধ দিয়ে ১/২ কাপ ছানা হয়েছে)
১/২ চা চামচের একটু বেশি সুজি
১/২ চা চামচ ময়দা
২ চা চামচ চিনি
(এই মাপে আমার ৫ টা চমচম হয়েছে)
সিরার জন্য:
দেড় কাপ চিনি
সাড়ে ৩ কাপ পানি
২-৩ টা এলাচ
এক টুকরা দারচিনি

প্রনালী :

১.রসগোল্লা, চমচম জাতীয় মিষ্টির ছানা শক্ত হওয়া যাবে না. ফ্রিজে রাখা পুরোন ছানাও হওয়া যাবে না. ছানা ,সুজি ,ময়দা ,চিনি দিয়ে একদম আঠা আঠা না হওয়া পর্যন্ত মথতে হবে.
এত কষ্ট কে করে.আমি আমার গ্রাইন্ডারে দিয়ে দেই. ২/৩ বার ৫/৬ সেকেন্ডের জন্য ব্লেন্ড করে নিলেই সুন্দর আঠাল হয়ে যাবে.
হাতে ঘি মেখে শেপ করে নিতে হবে.

২. এলাচ,দারচিনি দিয়ে সিরা জাল দিতে হবে. এক বলক আসলেই মিষ্টি গুলো দিয়ে ঢেকে মাঝারি আচে ২০ মিনিট জ্বাল দিব ২০ মিনিট পর আমি আধা কাপ থেকে ১ কাপ পানি যোগ করবো.সিরা প্রথম থেকেই সব সময় পাতলা হতে হবে .

৩.পানি যোগ করে মাঝারি থেকে কম আচে ঢেকে জ্বাল দিতে থাকি.৩০- ৪০ মিনিট পরে আবার পানি যোগ করবো.এভাবে ৩ ঘন্টা জ্বাল দিতে হবে.সিরা শুকিয়ে আসতে থাকলে গরম পানি যোগ করবো .শেষের বার পানি আর যোগ করবো না. মানে ২ ,আড়াই ঘন্টা পরে
সিরা ঘন, গাঢ় হয়ে আসলে চুলা বন্ধ করে দিব. সিরা আৎালো, ঘন কিন্তু runny হবে. থকথকে হবে না. সিরা থেকে তুলে মাওয়া তে গড়িয়ে নিলেই রেডি মিষ্টির দোকানের মতো চমচম.
চমচমের মিষ্টি গুলো সিরায় ছাড়ার প্রথম থেকে একে বারে দুই , আড়াই ঘন্টা, অর্থাৎ আঠালো, ঘন হবার জন্য জ্বাল দেয়ার আগ পর্যন্ত পাতলা সিরা হতে হবে. সিরা যদি প্রথম থেকেই ঘন হয়ে যায় তবে মিষ্টি শক্ত হবে.
৩ ঘন্টা ধরে জাল দিলে এমনিতেই বাদামি রং হবে কিন্তু যদি লাল রং বা গাঢ় বাদামি চান তবে ২ ঘন্টা পরে প্রয়োজন মত একটু ক্যারামেল যোগ করতে পারেন. আধা চামচ ক্যারামেল ই যথেষ্ট.

13886979_667811383369845_6375959387587243173_n

Chomchom:

Ingredients:

1/2 cup Chaana ( from 1 litr milk)
Little more than 1/2 teaspoon sooji/Semolina
1/2 teaspoon flour
2 tea spoon sugar
( 5 chomchom with this amount)

For Sugar syrup:
1 and 1/2 cup sugar
3 and 1/2 cup sugar
2/3 cardamoms, a small stick of cinnamon.

Procedure:

1./ Make a thin sugar syrup with the ingredients mentioned for sugar syrup.
2. Knead the chaana with sooji and flour very well , until sticky. I use food processor or grinder . Just a few seconds.
3. Shape the chomchom applying ghee on your palm. Bring the sugar syrup to a boil and reduce the heat a little. add the chochom into it and cook for 20 minutes with lid on at medium heat. After 20 minutes reduce the heat a little bit and add 1/2 cup of boiling water. Repeat the process, adding hot water , after 30/40 minutes. Cook the chomchom in this process for at least 3 hours. Everytime the syrup is reduced add hot water. Remember , the syrup should be thin from the very beginning, otherwiswe the chomchom will be hard.
Don’t add water after 2 and 1/2 hours. Let the syrup get thicker. The syrup should be thicker, sticky but runny. Now take out the chomchom for syrup and roll them on maowa. Ready.
If you wish dark color, add little bit of caramel after 2 hours in the sugar syrup.

20160829_190332

 

ছানার কালোজাম / Bangladeashi Sweet KaloJaam with chesse/ Bangladeshi Style kalajamun

2016-08-2612-28-17

Bangladeshi style kalojaam or kalajamun is really different from that of indian ones. the texture and taste really differs a lot. i will upload the English recipe very soon. Just working on my website bit. Please have some patience. 🙂 And stay  connected to my Facebook page Khadiza’s Kitchen for the updates and new recipes. Thank you . ❤

ছানার কালোজাম

কালোজাম আগে ছানা দিয়েই হতো.কিন্তু এখন শুনেছি ময়রারাও নাকি গুড়ো দুধ দিয়েই কালোজাম বানায়.ছানার কালোজাম আর পাউডার মিল্ক এর কালজামের টেক্সচারে পার্থক্য রয়েছে. ছানার কালোজামের ভিতর কিছু টা দানা দানা,আর পাউডার মিল্ক এর কালোজাম মসৃন,গুলাবজামুন বা লালমোহনের মতো.যাই হোক ছানার কালজামের জন্য প্রয়াত সিদ্দিকা কবিরের রেসিপি কে মূল ধরে নিয়ে এই রেসিপি.
কালজামের জন্য ছানা যতটুকু নেয়া হবে,তার অর্ধেক মাওয়া আর মাওয়ার অর্ধেক ময়দা.
যেমন ১ কাপ ছানা হলে ১/২ কাপ মাওয়া আর ১/৪ কাপ ময়দা.
আমি তুলনামুলকভাবে ময়দা টা আরেক্তু কম নেই. আমি এখানে ১/২ কাপ ছানার কালোজাম বানিয়েছি.
আর মাওয়ার বদলে নিয়েছি গুড়া দুধ.একটু ঘি নিয়েছি আর সব চেয়ে ট্রিকি যে উপকরণ, সেটা হলো চিনি. চিনি দেয়াতে চিনি ক্যারামেলাইযড হয়ে খুব সহজে সুন্দর রং আসবে. কালজামের জন্য খুব বেশিক্ষন ধরে মাত্রাতিরিক্ত ভাজা হলে উপর টা পুরে ভিতর শক্ত হয়ে যাবে,মিষ্টি শক্ত আর বিস্বাদ হবে.
বাকি টিপ্স গুলো আমি রেসিপির পরে দিচ্ছি.

013

উপকরণ :
১/২ কাপ ছানা
১/৪ কাপ গুড়া দুধ বা মাওয়া
১ এবং ১/২ টেবিল চামচ ময়দা
১টেবিল চামচ এর একটু কম ঘি
২ চা চামচ এর একটু বেশি চিনি
১ চিমটি বেকিং পাউডার
ফুড কালার
সিরার জন্য:
আমি চমচম বানিয়ে বেচে যাওয়া সিরা তে পানি মিশিয়ে ব্যাবহার করেছি.
১ কাপ চিনি
২ কাপ পানি
দুটো এলাচ,ছোট এক টুকরা দারচিনি
সিরা টা খুব ঘন হবে না . ঘন সিরাতে মিষ্টির ভিতর সিরা ঢুকে না,ফলে ভিতরে শক্ত থাকে.

প্রনালী :

১. ছানা,গুড়া দুধ, ময়দা একসাথে মিশিয়ে নিন.ঘি আর চিনি দিয়ে এখন স্মুদ করে মেখে মিন.খুব বেশি মথার দরকার নাই. জাস্ট সব কিছু একসাথে মেখে মিলিয়ে নেয়া. একটু স্টিকি লাগবে. আমি ৫ মিনিট ফ্রিজে রেখে দেই.
অনেকের কাছে শুনেছি,কালজাম এর ছানা খুব বেশি মথলে নাকি,মিষ্টি হার্ড হয়.তবে সব উপকরন যেনো এক সাথে সুন্দর ভাবে মিশে যায় খেয়াল রাখতে হবে.

২. তেল গরম হতে হবে ,এমন ভাবে যেনো গরম হয়েছে,কিন্তু ধোয়া উঠা গরম না. বেশি গরম হলে কালার চলে আসবে, কিন্তু ভিতরে কাচা থাকবে. ভিতরেও যদি সুন্দর ভাবে না ভাজা হয়,তাহলে কিন্তু মিষ্টি সিরায় ভিজবে না.
কম গরম তেলে দিলে মিষ্টি ফাটা ফাটা হবে বা খুলেও যেতে পারে. তাই তেলের তাপমাত্রা টা নিজেদের একটু বুঝে নিতে হবে.

৩. হাতে ঘি মাখিয়ে মিষ্টি শেইপ করে নিতে হবে. মিষ্টির গায়ে কোন ক্র‍্যাক থাকলে মিষ্টি কিন্তু খুলে যেতে পারে বা ফাটা ফাটা হতে পারে.
আরেকটা জিনিষ,মিষ্টি শেইপ করে বাতাসে ফেলে রাখবেন না,বা মিষ্টির ডো টা বেশিক্ষন ফ্রিজে রাখবেন না.
তেলে মিষ্টি গুলো ছেড়ে অল্প আচে ভাজুন. একসাথে অনেক গুলো মিষ্টি তেলে দিবেন না,তাতে গায়ে গায়ে লেগে মিষ্টির শেইপ নষ্ট হতে পারে বা উল্টাতে গেলে খোচা লেগে মিষ্টি নষ্ট হয়ে যেতে পারে.
মিষ্টি গুলো গাঢ় বাদামি করে ভাজতে হবে. কাল করার চেষ্টা করবেন না,তাতে মিষ্টি মাত্রাতিরিক্ত ভাজা হয়ে যাবে.
যে কোন ভাজা জিনিশ তেল থেকে উঠালে আরও গাঢ় হয়ে যায়.

৪ . গাঢ় বাদামি করে ভেজে গরম সিরায় দিন. কখন ফুটন্ত সিরায় দিবেন না. সিরা গরম হবে ,কিন্তু ফুটন্ত না . আবার হালকা গরম ও হবে না. গরম সিরা হতে হবে. গরম সিরায় ঢেকে দিয়ে মাঝারি থেকে কম আচে ৫ মিনিট জ্বাল দিয়ে আবার উল্টে দিয়ে আবারো ৫ মিনিট জ্বাল দিতে হবে. মোট ১০ মিনিট তবে এর কম সময় ও লাগতে পারে. আমার লেগেছে ৮ মিনিট এর মতো. প্রথম ৪ মিনিট পরেই উল্টে দিয়েছি.মিষ্টির টেক্সচার দেখেই বুঝতে পারবেন.
চুলা বন্ধ করে আরো ১০/১৫ মিনিট রেখে দিন.জ্বাল দেয়া হয়ে গেলে ঢেকে রেখে দিতে হবে. জ্বাল দিয়েই হটাৎ বাতাসের সংস্পর্সে আসলে মিষ্টি চুপসে যেতে পারে.

জ্বাল দেয়ার সময় শেষের দিকে সিরা একটু ঘন হয়ে আসবে,কিন্তু খুব বেশি না. যদি মনে করেন,বেশি ঘন হয়ে আসছে, অল্প গরম পানি যোগ করতে পারেন.
কালজাম,লালমোহন এর থেকে ভাজা বেশি হয় বলে এমন গরম সিরা তে কিছুক্ষন জ্বাল দিতে হয়.
ব্যাস হয়ে গেল ছানার কালোজাম, মাওয়া তে গড়িয়ে পরিবেশন করুন. একটু ঠান্ডা হলে বেশি ভাল লাগবে.

018

দরকারি জিনিষ গুলো আরেকবার review করে নেই;
১. সব উপকরন সুন্দর ভাবে স্মুদ করে মেখে নিতে হবে. সব মিলে যাবে এমন,খুব বেশি মথার দরকার নেই.
২.ছানার ডো টা একটু সেট হতে ৫ মিনিট ফ্রিজে রাখা যায়,কিন্তু এর বেশি না.
৩.ডো তে অবশ্যই চিনি ব্যাবহার করতে হবে,তাতে সুন্দর রং আগেই আসবে,মাত্রাতিরিক্ত ভাজতে হবে না.
৪.ভাজার তেল গরম হতে হবে,কিন্তু ধোয়া উঠা বা আগুন গরম নয়. তেল হাল্কা গরম বা ঠান্ডাও হওয়া যাবে না. প্রথম ক্ষেত্রে, মিষ্টি তে রং এসে যাবে,ভাজা হবে না; পরের ক্ষেত্রে মিষ্টি খুলে জেতে পারে বা ফাটা ফাটা হতে পারে.
৫. মিষ্টি সুন্দর ভাবে হাতে ঘি মেখে মসৃন করে শেইপ করতে হবে. কোন ক্র‍্যাক থাকা চলবে না. ক্র‍্যাক থাকলে মিষ্টি ভেংে যাবে.
শেইপ করে বাতাসে রেখে দেয়া যাবে না. সাথে সাথে ভাজতে হবে.
৬.খুব বেশি বেকিং পাউডার ব্যাবহার করা যাবে না.
৭. একসাথে অনেক গুলো মিষ্টি ভাজা যাবে না. ভাজার সময় যথেষ্ট স্পেইস যেনো থাকে.
৮. মিষ্টি গুলো গাঢ় বাদামি করে ভাজবেন,কালো করে নয়.তাহলে কিন্তু মিষ্টির ভিতরে সিরা ঢুকবে না আর খেতেও বিস্বাদ লাগবে.
৯.সিরা টা পাতলা হবে. আর সিরাতে দেয়ার সময় গরম সিরা হবে কিন্তু ফুটন্ত না. মিষ্টি গুলো ভেজেই সিরায় দিয়ে দিতে হবে.ঢেকে দিয়ে প্রথমে ৫ মিনিট ,পরে উল্টে দিয়ে আরো ৫ মিনিট ঢেকে,মাঝারি থেকে কম আচে জ্বাল দিতে হবে. চুলা বন্ধ করে আরো ১০/১৫ মিনিট সিরায় রেখে তুলে মাওয়া তে গড়িয়ে পরিবেশন করুন.
জ্বাল দেয়া হয়ে গেলে ঢেকে রেখে দিতে হবে. জ্বাল দিয়েই হটাৎ বাতাসের সংস্পর্সে আসলে মিষ্টি চুপসে যেতে পারে.

Pantoya/পানতোয়া

Desktop21

 

Hi friends!! I am back again!! So why not greet everyone with a very classic Bangali sweet Pantoya!!
Pantoya, though a look alike of Laalmohon or Gulabjamun but it’s quite different in size and  of course in ingredients and ratio of ingredients. Where Laalmohon or gulabjamun is totally khoya/ maowa based, Pantoya’s main ingredient is Chaana/ cheese.And Pantoya is much bigger than the gulabjamun or laalmohon.

Without much talking , let’s proceed to the recipe:

Pantoya

Ingredients:

3/4 th cup chaana/ cheese

1/3 rd cup maowa/khoya

1 tbl spoon semolina/ sooji ( soaked in water and strained out)

1-2 tbl spoon flour

a pinch of cardamom powder

1 tbl spoon ghee

1/2 tea spoon  baking powder

For Sugar Syrup:

2 cups of sugar

4cups of water

few cardamoms, small stick of  cinnamon

 

Oil for frying.

 

Procedure:

  1. Drain out the water from chaana. There should not be a single drop of water.
  2. Those who wants to make maowa at home , mix 1 cup of powder milk with 1tbl spoon ghee and 1/2 ( half) cup of  heavy cream or milk and microwave it. Check after every 30/40 seconds lest it should not get burnt. Don’t dry out too much as it becomes more solid , when cools down.
  3. Make the sugar syrup. Don’t make it too thin, nor too thick . If it is too thick the sweets will not be soaked in the syrup and will remain hard.
  4. knead the chaana very well . Add other ingredients and knead well.
  5. Make balls from the dough . While doing it , don’t forget to apply some ghee on your palm. And immediately put them into the hot oil. The oil should be hot but not smoky hot. In that case , the sweets will get the colored soon  but will remain raw inside and will not be soaked well . So fry on low flame for a longer time. Don’t rush.
  6. Remove them from the oil and add them into the Warm sugar syrup immediately . The stove must be turned off.If your sweets are fried well , you will see they will soak almost all the syrup within 10/15 minutes. You may sprinkle some rose water in the syrup.The Syrup must not be too hot , that would ruin the color and texture of the sweet . The syrup should be warm but not piping hot .

 

পানতোয়া

উপকরণ :
৩/৪ ভাগ কাপ ছানা
১/৩ ভাগ মাওয়া
১ টেবিল চামচ সুজি (পানিতে ভিজিয়ে ছেকে নেয়া)
১-২ টেবিল চামচ ময়দা
এলাচ গুড়ো,সামান্য
১ টেবিল চামচ ঘি
১/২ চা চামচ বেকিং পাউডার
সিরার জন্য:
২ কাপ চিনি
৪ কাপ পানি
দুটো এলাচ,ছোট এক টুকরা দারচিনি
তেল ,ভাজার জন্যে

প্রনালী :

১. ছানার পানি ভাল করে ঝড়িয়ে নিন.একটুও যেন পানি না থাকে.
২.যারা ঘরে বানানো মাওয়া ব্যাবহার করতে চান , তারা ১ কাপ পাউডার দুধে ১ টেবিল চামচ ঘি আর ১/২ কাপ হেভি ক্রিম( বাইরে এটা লিকুইড ফর্মে থাকে) বা লিকুইড দুধ দিয়ে মিশিয়ে মাইক্রো ওয়েইভ করে নিন. প্রতি ৩০/৪০ সেকেন্ড পরপর চেক করুন যেন পুরে না যায়.একদম বেশি টানিয়ে ফেলবেন না, কারন ঠান্ডা হলেই এটি সলিড ফরমে চলে যায়.
৩.সিরা করে নিন. খুব ঘন না , আবার একদম পাতলা না. হালকা ঘন হবে.সিরা ঘন হলে কিন্তু মিষ্টির ভিতরে সিরা ঢুকবে না.
৪. অল্প আচে তেল গরম দিয়ে ছানা ভাল করে মথুন.মাওয়া , সুজি, ময়দা , ঘি , এলাচ গুড়ো দিয়ে মথে নিন.মিষ্টি গুলো আগেই গোল গোল করে বানিয়ে বাতাসে রেখে দিবেন না.টেক্সচার ভাল হয় না আর মিষ্টি গুলো গোল থাকবে না.
৫. তেল গরম হবে কিন্তু এমন গরম নয় যে তেলে দেয়ার সাথে সাথে মিষ্টির রং এসে যাবে. অল্প আচে বেশ সময় নিয়ে লাল করে ভাজতে হবে.ভাজা যত ভাল হবে, মিষ্টি তত সুন্দর ভিজে তুলতুলে হবে.তেল গরম না হতেই ভাজতে বসলে কিন্তু মিষ্টিতে ক্র‍্যাক হবে.
এক সাথে অনেক গুলো মিষ্টি ছাড়বেন না.
৬ . মিষ্টি ভাজার সাথে সাথে হালকা গরম সিরায় ছেড়ে ঢেকে রাখুন. চুলা কিন্তু বন্ধ থাকবে. একদম গরম সিরায় দিলে মিষ্টির উপরের আবরন তাপে নষ্ট হয়ে খুলে খুলে যাবে.
৭. সব ঠিক থাকলে আধাঘন্টার মধ্যে সিরা টেনে নিয়ে মিষ্টি ভিজে তুলতুলে হয়ে থাকবে.

Shahi Tukra / শাহী টুকরা ( With simple ingredients)

003

I always get many requests to give easy dessert recipes using easily available and affordable ingredients . So here you go with my Shahi Tukra recipe , without any cream, condensed milk , evaporated milk or even powder milk . Very easy recipe yet so gorgeous!!

Ingredients:

7 pieces of white bread ( it’s better to have stale bread)
1 1/2 liter full cream liquid milk
1/2 – 3/4 th cup sugar ( according to taste)
3 small green cardamom, 1 small stick of cinnamon
Oil+ 1 tbl spoon Ghee ( for deep frying)
Rose water
Nuts and raisins for garnishing

Procedure:

1. Put milk in a deep bottomed pot , add cinnamon, cardamom in it and bring it to boil. Once it comes to a boil, reduce flame to low and allow to simmer stirring occasionally .Every 4 to 5 minutes, mix the malai/ shor (top of milk) that forms on the top and towards the sides of the vessel into the milk. Continue to do this until the milk is reduced to half of the original quantity. Add the sugar and now stir it frequently.

2.Remove the crust edges from the bread and cut into any shape of your choice , rectangular, square , circle , triangle or even round .

3. The same time heat oil and add one or two tbl spoon of ghee into the oil . That would make the shahi tukra smell like fried in ghee . Deep-fry the bread slices until dark golden and crispy . The color should not be light as the color gets lighter if soaked in milk.

4. Now immediately put the fried breads into the milk . Remove the breads from the milk after 40 second to 1 minute or until little soft . the breads should be soft but firm . If it is too soft , it will break apart and will get mushy after final pouring of the rabri over it . so just a little while to get the breads little soft and soaked completely .
Arrange the soaked bread pieces on to the serving dish .

5. Thicken the milk a little more until it looks like cream . But don’t thicken it too much as it gets thicker after cooling down . Cool a little bit . Pour the rabri over the fried bread pieces and garnish it with nuts and raisins .

শাহী টুকরা

উপকরন:
৭ পিস পাউরুটি ( বাসি বা দু এক দিনের পুরনো হলে ভাল)
১ ১/২(দের লিটার) ফুল ক্রিম দুধ
১/২ থেকে ৩/৪ কাপ চিনি (স্বাদ অনুযায়ী)
৩ তা ছোট এলাচ ,ছোট এক্টা দারুচিনি
তেল + ১ টেবিল চামচ ঘি, ভাজার জন্য
গোলাপ জল
বাদাম আর কিশমিশ (সাজানর জন্য )

১।একটা বড় গলার হাড়ি তে দুধ , ছোট এলাচ , দারুচিনি দিয়ে মৃদু আচে জাল দিতে থাকুন ।
মাঝে মাঝে নাড়িয়ে দিন যাতে নীচে পোড়া না লাগে। তবে খুব বেশি ঘন ঘন নাড়বার দরকার নেই । কিছুক্ষণ পরে দুধের চারপাশে এবং উপরে সর এর মতো পরবে। চারপাশ র উপরের সর দুধের মধ্যে হাল্কা ভাবে মিশিয়ে দিতে হবে।
এভাবে দুধ যখন অর্ধেক হয়ে আসবে তখন চিনি মিশিয়ে নিন ।চিনি মিশানোর পর ঘন ঘন নাড়তে হবে নইলে নিচে পোড়া লাগবে ।

২।পাউরুটির চারপাশের শক্ত অংশ টুকু কেটে ফেলুন। পাউরুটি গুলো তিন কোনা বা আড়াআড়ি ভাবে অর্ধেক করে নিন ।

৩। তেল এর সাথে ১ টেবল চামচ ঘি দিয়ে গরম করুন । পাউরুটি গুলো ডুবো তেল এ সোনালি বা একটু লালচে করে ভেজে নিন।

৪।ভাজা রুটির টুকরো গুলো অর্ধেক হয়ে আসা দুধের মধ্যে দিন। একটু রেখে সার্ভিং ডিসে রুটি গুলো সাজিয়ে রাখুন। রুটি গুলো ১ মিনিট দুধে রাখলেই নরম হয়ে যাবে।

৫। দুধ টা কে আরো কিছুক্ষণ জ্বাল দিয়ে ঘন ক্রিম এর মত করে ফেলুন।একদম ঘন থকথকে করা যাবে না , কারন এই রাবড়ি টা ঠান্ডা হলে আরো ঘন হয়ে যাবে। একটু ঠান্ডা করে রুটির উপর ঢেলে দিন। গোলাপ জল ছিটিয়ে দিন।
বাদাম কুচি দিয়ে সাজিয়ে ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

Roshugolla and Gulabjamun Stuffed Bhapa Doi ( steamed sweet yogurt)

2015-03-18

As I told before , I do possess a very “Fertile Brain” ( according to my hubby) full of ideas . My friends were supposed to come at my place for dinner and I was thinking of making something quick but innovative . Suddenly the idea struck my mind and here you go with my sweet stuffed steamed sweet yogurt , though I baked it . Yes, you can make yogurt the same way in no more than 40 minutes . 🙂

Ingredients:

1 cup strained plain yogurt ( unsweetened)
1 cup evaporated milk or very thick milk
1 or 3/4th of a can of condensed milk ( according to taste)
Sweets like roshogolla and gulabjamun
Chopped nuts

Procedure:

1. Whisk the yogurt and mix evaporated milk and condensed milk with it .

2. Pour onto the baking dish and add chopped nuts and sweets . Push the sweet downwards so that they remain inside the mixture .

3. Take a tray full of water and place the baking dish over it . Now place it in the preheated oven and bake for 30-40 minutes . After cooling down refrigerate it for 3/4 hours to set completely . 🙂

Serve chilled!!!

মিষ্টি ভরা ভাপা দই ঃ
১ কাপ টক দই (পানি ঝরানো)
১ কাপ ইভাপোরেটেড মিল্ক বা খুব ঘন দুধ (কুসুম গরম বা ঘরের তাপমাত্রার)
১টা বা ৩/৪ ভাগ টিন কন্ডেন্সেড মিল্ক
মিষ্টি, রসগোল্লা/লালমোহন
বাদাম কুচি
প্রনালীঃ
১।দই ফেটে নিয়ে তাতে দুধ এবং কন্ডেন্সেড মিল্ক মিশিয়ে নিতে হবে।
২। পরিবেশন এর জন্য রাখা পাত্রে ঢেলে বাদাম কুচি মিষ্টি দিয়ে দিতে হবে।
৩।অভেন এ ৩৫০ ডিগ্রি ফারেন্হাইটে ৪০ মিনিট বেক করে নিয়ে ফ্রিজে রেখে দিয়ে ঠান্ডা পরিবেশন করতে হবে ।
বেক করার সময় দই এর পাত্রের নিচে এক্টা ট্রে তে পানি দিয়ে বেক করতে হবে। চাইলে পুডিং এর মত ভাপ দিয়ে করা যায়।

Rava Laddu ( semolina laddu)

2015-03-06

Ingredients :

1 cup sooji or semolina
3/4 th cup sugar ( powdered)
3/4 th cup desiccated coconut
1/3 rd cup melted ghee
1/4 th cup thick milk
1/4 th cup water
1/2 tea spoon cardamom ( elach) powder
1/2 tea spoon saffron or a tiny pinch of food color
Almond / pistachio / raisins , fried in ghee

Procedure :

1. Soak saffron in 1/4 th cup of warm milk . If you don’t have saffron , replace with tiny pinch of food color .

2. Dry roast the sooji/ semolina/ rava in a pan until fragrant and lightly brown . Don’t make it brown . Add the coconut and roast a little together.

3. Add the sugar . Add the melted ghee and mix well . The sooji will look moist due to ghee . You can add the dried fruits at this point .

4. Now the important part add the milk first . Let the sooji absorb the milk . It will look just little moist . Now add the water slowly . Don’t add too much water like halwa , you may not be able to get the correct texture . You have to add the liquid slowly to mix it with sooji evenly .

5. Apply some ghee on your palm and shape them into laddus .

Enjoy !!

Carrot-Kalakand Laddu

025

Divine!!! Delightful!!Decadent!!! My husband would go on adding some few more adjectives for this luscious laddu for sure !! It was my 9th marriage anniversary and wanted to make a dessert for the hubby dear using carrot, his favorite . Suddenly something popped into my brain and here comes the end result !!

This laddu is a combination of two desserts , carrot halwa and kalakand . But trust me , they are not at all difficult to make .

For the Carrot halwa:

Ingredients:

1 and 1/2 cup of shredded carrot
1/4 th cup sugar
2 tbl spoon ghee
1/3 rd cup of condensed milk
Little orange food color ( optional , if your carrot gets light colored while cooking)

Don’t use any “garam masala” like cardamom, cinnamon . Trust me they ruin the taste of halwa . Keep it simple , you will find the taste better .

Procedure:

1. Peel and finely grate the carrots . Now mix with sugar . Put them in a pan , preferably non-stick one , cover with the lid tightly and cook on low flame until the water from sugar and carrots dries out . As the pan is covered by the lid , the steam created inside will cook the carrot soon . Check after five minutes . Stir so that the carrot must not get burnt . Keep it like this another 2 minutes . This method helps to retain the color of the carrot and sugar enhances the color a lot . Make sure the stove is on low flame . If you find your carrots need some little more time to get done , take your time but stir occasionally .

2. Add ghee and mix well . Now pour the condensed milk and keep stirring until the liquid dries out and halwa pulls away from the sides of the pan. Turn off the stove and let it cool a bit .

In the mean time start making your kalakand;

Ingredients for kalakand:

For Chaana/ chesse

1. Milk 1 ltr / 4 cups

2. Lemon Juice 1 and half table spoon

Other Ingredients:

1. Ghee/clarified butter 2 tbl spoon

2. Powder Milk 4/5 tbl spoon

3. Condensed Milk a little more than half Tin

4. Cardamom Powder/ Elach guro half teaspoon

Cooking Method:

1. Heat the milk and bring it to a boil stirring occasionally so that the milk should not get burnt on the bottom. Then add the lemon juice and stir until the greenish water is seen, i.e, the whey is separated and the milk curdled.

2. Now remove almost all the whey/ water from the cheese , taking a little amount of it . If you strain all the whey no prob at all. 🙂

3. Continue to cook the Chaana on the stove on medium low heat. Add ghee, cardamom powder and sweetened condensed milk. Keep stirring. It will get thicker and will form water less lump. Remember Kalakand should have that crumbly texture.Add the powder milk and cook for last 1 minute . let it cool a bit too .

Making the laddu:

Now mix the kalakand with carrot halwa and shape into the size of laddus .

Enjoy !!

Boondi Laddu

011

This is the easiest and fail proof way to make boondi laddu . 🙂

Ingredients :

For Batter:

1 cup besan/ Benglam gram flour , sifted
3/4th cup -1 cup water ( room temperature), depending on the quality of besan . I took 3/4th cup+2 tbl spoon
1/4 th teaspoon baking soda
1/4 th tea spoon baking powder
Little food color
Little salt

For Sugar Syrup :

1 cup Sugar
1 cup of water
1/2 ( half) tbl spoon lemon juice ( prevents crystalization) , don’t skip this part
2 green cardamom and a small stick of cinnamon
1 tea spoon ghee ( add at the end)

Other:

After frying all the boondies take 1/2 cup of boondies from it and coarsly grind it . We need 1/3 rd cup of it , but if needed we can use the whole amount . It would help to bind the laddus .

Procedure:

1. Heat oil in a karahi on medium flame . Boondis need to be deep fried . In the mean time , start making the sugar syrup with the ingredients mentioned . The sugar syrup must me medium thick . It must not be thin . It must be like that , when you touch the syrup with finger , your finger sticks. But don’t make it too thick that it crystallizes . The syrup is very important for the boondia . If it’s thin , your boondis will be soggy and if your syrup is too thick the boondies will not absorb the syrup .

2. Sift the gram flour or besan . Make batter with the ingredients mentioned for batter . Add water little by little , so that there is no lump . Don’t add extra 1 or 2 tbl spoon of water unless needed . The batter should be medium thick . It must not be thin or else you won’t have the perfect shape . And if you make it too thick , it won’t pour into the oil through the strainer or spoon . It should be just like the cake batter . Now if you wish you can divide the batter into two or three bowl and add different colors to have colorful boondi laddu .

3. When the oil is ready to fry , hold the strainer just 2 inches above the hot oil . If you hold it above this height you won’t get the perfect round boondis . Hold it as near as possible to the oil . Now pour a little amount of batter onto the strainer or perforated ladle with a spoon and from the back of the spoon press a little . You will see small balls r dropping in to the oil . It should fall with intervals , then the perfect round shape will come . But if it falls like a line , you won’t have the shape . So little amount of batter one at a time . Must not be thin and press the batter with spoon once at a time gently . Don’t press it too hard , then too much will be poured in the oil ruining the shape . always put little batter on the spoon or strainer otherwise you won’t get the shape . After the first gentle press with the spoon , don’t press any more , rather give small strokes with the spoon on the strainer without touching the batter over it . 🙂

4. Fry the boondis until little crispy . Not too much , but yet crispy . remove them from the oil with another spoon . From this fried boondies , keep asise 1/2 cup of it and coarsly crush them into a grinder . Take 1/3 rd cup of powdered boondi and keep that side . you can store the remaining crushed boondies , if remain .

5.Put the remaining boondis in the hot sugar syrup until they get soft . Remember the syrup should be boiling hot . when you put the boondis into the syrup , the stove must be turned off , but after adding the boondi turn on the stove and cook the boondis at very low flame for at least 5/6 minutes until the boondis absorbed almost all the syrup and turned very soft .

6. Now add the caorsley grinded 1/3 rd cup of boondis into the boondies in syrup . mix well . Transfer them into a large serving dish . It should look like this;
005

7. Grease your hands with little ghee and start shaping the laddus while they are hot . If you wish , you can add dried nuts ( fried in ghee) or khoya ( maowa) .

Enjoy !!!

009

Dudh Chitoi

2015-01-30

Winter is no winter without the decadent , soaked in heavenly milk-date molassess syrup “Chitoi Pitha” , the variation known as Dudh Chitoi .

For the basic Chitoi pitha recipe click the following link;

https://khadizaskitchen.com/2015/01/30/chitoi-pitha/

Ingredients:

8 chitoi pithas
4-5 cups of water
Solid Date molassess ( khejur gur patali) , grated or broken in small pieces ,according to the taste
1/2 cup or more grated coconut
1 cup of evaporated milk or very thick milk

Procedure :

1. In order to make dudh chitoi , the pithas need to be hot . It can be freshly made or made previously but steamed later on to warm them up .

2. Make a molasess syrup by boiling water with the molasess until little thick . The syrup should be thin but not too watery . It must not be thick , or else the pithas won’t soak up the syrup. Depending on the size of pithas you may need more water .

3. Add the coconut .

4. Now immediately add the warm/ hot pithas into the hot syrup . Cover . Cook another 12/15 minutes The pithas will soak up much syrup .

5. When the syrup is cooled down or slightly warm , add slightly warm milk into it . Don’t add hot milk or don’t add milk into very hot syrup , that would separate water from milk . The syrup and milk both must be slightly warm . Now cover it and let the pithas to be soaked atleast 4/5 hours .

Enjoy !!!

Note:

1. Always use puffed up soft pithas for dudh chitoi . While making the chitoi pitha , if your batter is too thick , the pithas will be very dense and will not soak the syrup .

2. Many add cardamom , bayleaf in the syrup . Please don’t do this . This ruins the flavor of date molassess .